মোটরযানের ফিটনেস সার্টিফিকেট নবায়নের জন্য এখন থেকে আর নিবন্ধনকারী অফিসে যাওয়ার প্রয়োজন হবে না, বাংলাদেশের যে কোনো বিআরটিএ কার্যালয়ে গেলেই এ সেবা পাওয়া যাবে। বিআরটিএ-এর ৫৭টি জেলা ও ৫টি মেট্রো সার্কেলে রোববার থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে জানিয়ে বিআরটিএর চেয়ারম্যান মো. কামরুল আহসান বলেছেন, এর ফলে মানুষের ভোগান্তি ও হয়রানি কমবে।

“এতদিন যেখান থেকে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে ফিটনেস সার্টিফিকেট নবায়নের জন্য সেখানে গাড়ি নিয়ে আসতে হত। এখন আর এটা করতে হবে না। এখন বিআরটিএ-এর যে কোনো জেলা বা মেট্রো সার্কেল অফিসে গেলেই ফিটনেস নবায়ন করা যাবে, গাড়ি যেখান থেকেই নিবন্ধন করা হোক না কেন।

“পুরনো পদ্ধতিতে মানুষের কষ্ট, হয়রানি হত, সে কারণে এই বিকেন্দ্রীকরণ করা হয়েছে। এতে অনেক মানুষের উপকার হবে। রেজিস্ট্রেশন ঢাকা হলেও দেখা গেছে গাড়ি চলছে কুমিল্লায়। অথবা কোনো কাজে রাজশাহী গেলেন, সেদিনই ফিটনেস সার্টিফিকেট নবায়নের শেষ দিন। গাড়ি মালিক চাইলে সেখানেই ফিটনেস নবায়ন করতে পারবেন।”

কামরুল আহসান বলেন, চালকরা যেন স্বল্প সময়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে পারেন, সেজন্যও উদ্যোগ নিয়েছে বিআরটিএ।

“লাইসেন্স সেবাপ্রাপ্তি বিকেন্দ্রীকরণের জন্য উদ্যোগ নিয়েছি। লাইসেন্স প্রাপ্তির সময়টা কমিয়ে এনে কীভাবে আরো দ্রুত হস্তান্তর করা যায়। এ ব্যাপারে কর্মকৌশল নির্ধারণ করছি। অচিরেই হয়ত একটা ফলাফল আমরা দিতে পারব। বিআরটিএর হিসাবে, এ বছরের নভেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে ৪২ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮টি যানবাহন নিবন্ধিত হয়েছে।

এর মধ্যে ২৮ লাখ ১৬ হাজার ৬৩৪টি মোটরসাইকেল, ২ লাখ ৯৪ হাজার ৯২০টি অটোরিকশা, ২০ হাজার ৭৯৬টি অটো টেম্পো রয়েছে। মোটরসাইকেল ও অটোরিকশা ছাড়া অন্য সব যানবাহনের জন্যই প্রতিবছর ফিটনেস সনদ নবায়ন করতে হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here