নাট্যনির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টরস গিল্ড এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী প্রসূন আজাদকে।

এস এ হক অলিক বলেন, ‘ প্রসূন আজাদকে নিয়ে অভিনেত্রী ও নির্মাতা রোকেয়া প্রাচী অভিযোগ তুলেছেন। এ ছাড়া ফেসবুকে পরিচালকদের সম্পর্কে বাজে মন্তব্য করে প্রসূন স্ট্যাটাস দিয়েছেন, যা সত্যিই অশোভন ছিল। তাই আমরা প্রসূনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠাই। কিন্তু তিন দিন অতিক্রম হওয়ার পরও প্রসূন এর উত্তর দেননি। একসঙ্গে কাজ করলে ভুল হতেই পারে। আমরা সেটা সমাধান করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু প্রসূন এ ব্যাপারে কোনো কথা বলেননি। তাই এক বছরের জন্য প্রসূনকে আমরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছি। ডিরেক্টরস গিল্ডের সদস্য পরিচালকরা প্রসূনকে নিয়ে এর মধ্যে কোনো নাটক নির্মাণ করতে পারবেন না।’

অন্যদিকে নিষিদ্ধ হওয়ার ঘোষণা শুনে প্রসূন এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘ডিরেক্টরস গিল্ড আমাকে নিষিদ্ধ করল কি করল না, এটা নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যথা নেই। আমি স্বাধীনভাবে কাজ করতে চাই। ডিরেক্টরস গিল্ড আমাকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। আর আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তাঁদের সঙ্গে কখনো কাজ না করার।’

কিছুদিন আগে রোকেয়া প্রাচীর পরিচালনা ও প্রযোজনায় ‘স্বপ্ন সত্যি হতে পারে’ নামে একটি নাটকে অভিনয় করার কথা ছিল প্রসূনের। কিন্তু নাটকের শুটিংয়ের দিন রোকেয়া প্রাচীর সঙ্গে প্রসূনের কথাকাটাকাটি হয় । সেদিন শুটিং না করেই প্রসূন বাসায় ফেরেন এবং ফেসবুকে বিষয়টি নিয়ে একটা স্ট্যাটাস দেন। প্রসূনের স্ট্যাটাসের পর রোকেয়া প্রাচীও ফেসবুকে পাল্টা অভিযোগ করে স্ট্যাটাস দেন। প্রসূনের কারণে নাটকটির শুটিং সেদিন বন্ধ ছিল। এতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে জানান রোকেয়া প্রাচী। এরপর নাটকের তিন সংগঠন ‘ডিরেক্টরস গিল্ড’, ‘টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ’ ও ‘নাট্য সংঘ’-এর কাছে প্রসূন সম্পর্কে অভিযোগ করেন রোকেয়া প্রাচী।

সেদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে প্রসূন জানান, তিনি শুটিংয়ে তাঁর এক ফটোগ্রাফার ছোট ভাই প্রত্যয় আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ায় আপত্তি তোলেন রোকেয়া প্রাচী। কারণ, তিনি আগে থেকে জানতেন না যে প্রসূনের সঙ্গে কেউ থাকতে পারে। একা শুটিং সেটে যেতে আগ্রহী ছিলেন না প্রসূন। আর রোকেয়া প্রাচী শুটিং ইউনিটের বাইরে কাউকে স্পটে নিয়ে যেতে রাজি ছিলেন না। এ বিষয়ের জের ধরেই মূলত তাঁদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয় বলে দাবি করেন প্রসূন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here